1. news@priyobanglanews24.com : PRIYOBANGLANEWS24 :
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

কাল বুড়িগঙ্গায় নৌকা বাইচ

সিনিয়র প্রতিবেদক:
  • আপডেটের সময় : সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩৪৮ বার দেখা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়েছে। আগামীকাল মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ( বিআইডব্লিউটিএ’র) উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ রোইং ফেডারেশনের সহযোগিতায় বুড়িগঙ্গা নদী (কামরাঙ্গীর চর এলাকায়) এ নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত হবে।

ইট পাথরের ঢাকাবাসীকে একটু বিনোদন দেওয়ার জন্য নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়েছে। বাইচে অংশগ্রহণ করবে নবাবগঞ্জ রোইং ক্লাব ও নৌকা বাইচ ঐতিহ্য রক্ষা কমিটির ৬টি আকর্ষণীয় বিশালাকৃতির ঘাসি (ছিপ) নৌকা। বিশাল এ আয়োজন সফল করতে কামরাঙ্গীরচর ও কেরানীগঞ্জ উপজেলায় চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। বাইচে পুরস্কার হিসেবে দেয়া হবে মোটরসাইকেল, ফ্রিজ, এলইডি টেলিভিশন।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল। অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস, ঢাকা উত্তরের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম ঢাকা ২ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম ও হাজী সেলিম।

নৌকা বাইচ ঐতিহ্য রক্ষা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রাশিম মোল্লা বলেন, ঢাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে নৌকা বাইচে নবাবগঞ্জ রোইং ক্লাবের ৬ টি নৌকা অংশগ্রহণ করবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এদেশে নৌকা বাইচ গণবিনোদন হিসেবে কবে প্রচলন হয়েছিল তার সঠিক ইতিহাস পাওয়া যায় না। তবে এ বিষয়ে দুটি জনশ্রুতি রয়েছে।

একটি জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রাকে কেন্দ্র করে। জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রার সময় স্নানার্থীদের নিয়ে বহু নৌকার ছড়াছড়ি ও দৌড়াদৌড়ি পড়ে যায়। এতেই মাঝি-মাল্লা-যাত্রীরা প্রতিযোগিতার আনন্দ পায়। এ থেকে কালক্রমে নৌকা বাইচ শুরু। দ্বিতীয় জনশ্রুতি পীর গাজীকে কেন্দ্র করে। ১৮ শতকের শুরুর দিকে কোনো এক গাজী পীর মেঘনা নদীর এক পাড়ে দাঁড়িয়ে অন্য পাড়ে থাকা তার ভক্তদের কাছে আসার আহ্বান করেন। কিন্তু ঘাটে কোনো নৌকা ছিল না। ভক্তরা তার কাছে আসতে একটি ডিঙ্গি নৌকা খুঁজে বের করেন। যখনই নৌকাটি মাঝ নদীতে এলো তখনই নদীতে তোলপাড় আরম্ভ হলো। নদী ফুলেফেঁপে উঠলো। তখন চারপাশে যত নৌকা ছিল তারা খবর পেয়ে ছুটে আসে। তখন সারি সারি নৌকা একে অন্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ছুটে চলে। এ থেকেই নৌকা বাইচের গোড়াপত্তন হয়। মুসলিম যুগের নবাব-বাদশাহদের আমলে নৌকা বাইচ বেশ জনপ্রিয় ছিল। আবার অনেকে মনে করেন, নবাব বাদশাহদের নৌবাহিনী থেকেই নৌকা বাইচের গোড়াপত্তন হয়।

এখান থেকে আপনার সোস্যাল নেটওয়ার্কে শেয়ার করুন

Leave a Reply

ক্যাটাগরির আরো খবর
© এই ওয়েবসাইটি প্রিয়বাংলা২৪নিউজ.কম দ্বারা সংরক্ষিত।
পিবি লিংক এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান